ওমেগা ৩: কেন খাবেন, কী খাবেন

আজকাল ওমেগা ৩ খাবার নিয়ে বেশ হইচই। এমনকি অনেকে নিয়মিত দোকান থেকে ওমেগা ৩ ক্যাপসুল কিনে খান। কেননা এটি নাকি স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। এই ওমেগা ৩ আসলে কেন খাওয়া দরকার?

1
2
3

ওমেগা ৩ আসলে অসম্পৃক্ত চর্বি। আমরা জানি, সম্পৃক্ত চর্বি হৃদ্যন্ত্রের জন্য ক্ষতিকর। তেল-চর্বিযুক্ত খাবার তাই খেতে মানা। কিন্তু অসম্পৃক্ত চর্বিযুক্ত খাবার খেতে বাধা নেই, বরং এটি রক্তের উপকারী চর্বির পরিমাণ বাড়ায় এবং আদতে উপকারই করে। কয়েক ধরনের ওমেগা ৩ চর্বি আছে প্রকৃতিতে। এর মধ্যে আলফা লিনোলিক অ্যাসিড পাওয়া যায় কিছু উদ্ভিজ্জ খাবার বা তেলে। ইকোসা প্যান্টনোয়েক অ্যাসিড এবং ডোকোসা হেক্সোনোয়েক অ্যাসিড পাওয়া যায় সামুদ্রিক খাবারে।

4
5
6

আসুন, জেনে নিই প্রাকৃতিকভাবে কোন ধরনের খাবারে ওমেগা ৩ চর্বি বেশি।

-উদ্ভিজ্জ তেলে ওমেগা ৩ চর্বি আছে। এ বিষয়ে সবচেয়ে ভালো হলো তিসির তেল ও ক্যানোলা তেল। যা আমাদের দেশে ব্যবহৃত হয় না। তবে সয়াবিন তেলেও আছে কিছুটা। তবে এর নিয়ন্ত্রিত ব্যবহার করতে হবে।

-সামুদ্রিক মাছের তেল ওমেগা ৩-এর চমৎকার উৎস। দেশীয় মাছের মধ্যে ইলিশ, রুপচাঁদা ইত্যাদি মাছের তেলে এর পরিমাণ বেশি।

7
8
9< -বিভিন্ন ধরনের বাদামে বেশ ওমেগা ৩ আছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি পরিমাণে আছে ওয়ালনাট বা আখরোট, পেস্তা ইত্যাদি বাদামে। প্রতিদিন একটু বাদাম ওমেগা ৩ জোগাবে। -মাছের ডিমে ক্ষতিকর চর্বির সঙ্গে ওমেগা ৩ উপকারী চর্বিও আছে বেশ ভালো পরিমাণে। ১ চামচ মাছের ডিমে প্রায় ৩৪২ মিলিগ্রাম পরিমাণ ওমেগা ৩ পাওয়া যায়। -কিছু বীজজাতীয় খাবারেও ওমেগা ৩ আছে। 10
11
12

Leave your vote

Comments

0 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *