কোন ডাক্তারের কাছে যাবেন?

পেটে মাঝেমধ্যে চিনচিন ব্যথা হয়। পেটের ডাক্তার দেখাবেন, না সার্জন? কোমরে ব্যথা—হাড় জোড়া বিশেষজ্ঞের কাছে যাবেন, নাকি বাতব্যথা বিশেষজ্ঞের কাছে। নাকি ফিজিক্যাল মেডিসিনে ভালো হবে? ছোট থেকে বড় নানা সমস্যায় আমরা এ রকম দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়ি। সমস্যার কতটা গুরুত্ব, ডাক্তারের কাছে যাবেন কি না, আর গেলেই বা কোন বিশেষজ্ঞের কাছে—এ নিয়েই দ্বন্দ্ব।

আকস্মিক কোন সমস্যায় কী করবেন, সে সম্পর্কে একটু ধারণা রাখা ভালো। সে জন্য কয়েকটি পরামর্শ:

* শিশুদের যেকোনো সমস্যায় প্রথমে শিশু বিশেষজ্ঞের কাছেই নিয়ে যাবেন। তিনিই বুঝতে পারবেন, শল্যচিকিৎসা দরকার, নাকি অন্য কিছু। প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষাও তিনিই করে ফেলতে পারবেন। এতে আরও স্পষ্ট হবে কোন বিশেষজ্ঞ দরকার। শিশুর যেকোনো সমস্যায় পরামর্শের জন্য বাড়ির কাছেই একজন শিশুদের ডাক্তারের সঙ্গে সব সময় যোগাযোগ রাখুন, যিনি শিশুটির আদ্যোপান্ত জানেন।

* প্রচণ্ড পেটব্যথা, বুকে ব্যথা, হঠাৎ অচেতন হয়ে পড়া, প্রচুর বমি বা ডায়রিয়া, অনেক বেশি জ্বর, অসংলগ্ন আচরণ বা কথাবার্তা, রক্তক্ষরণ, কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত জিনিস গিলে ফেলা, দুর্ঘটনা—এগুলো হচ্ছে জরুরি অবস্থা বা ইমার্জেন্সি। এসব ক্ষেত্রে কখনোই কোনো ডাক্তারের চেম্বারে সিরিয়াল না দিয়ে সরাসরি যেকোনো হাসপাতালের (বাড়ির কাছে) জরুরি বিভাগে যোগাযোগ করবেন।

* শারীরিক সমস্যা বা অসুস্থতায় যার-তার পরামর্শ না নিয়ে একজন ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়াই ভালো। তিনি যেকোনো চিকিৎসক (জেনারেল ফিজিশিয়ান) হতে পারেন।

* সমস্যা যত ছোটই হোক, দোকানির পরামর্শে কখনোই ওষুধ কিনে খাবেন না। উল্টোপাল্টা চিকিৎসা না নেওয়াই ভালো।

Leave your vote

Comments

0 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *