গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দূর করতে ১০টি ঘরোয়া উপায় যা খুব দ্রুত কাজ করে

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কিংবা গ্যাস্ট্রাইটিস আমাদের অতি পরিচিত একটি সমস্যা। আমরা সকলেই মোটামুটি এই সমস্যায় ভুগি। ঠিকমতো খাওয়া-দাওয়া না করার ফলে এই সমস্যার সৃষ্টি হয়। এটি একসময় আলসারের রূপ ধারণ করে। এই সমস্যা হলে খাওয়ার আগে বা পরে বুক জ্বালাপোড়া ও পেট ব্যথা করে। এছাড়াও দেখা যায় পেট থেকে ভুর ভুর শব্দ কিংবা মুখের দুর্গন্ধের মত সমস্যা।

এই সমস্যা নিয়ে যারা কষ্ট পাচ্ছেন তারা নিশ্চয়ই জানেন এই সময় কতটা যন্ত্রণাদায়ক হয়।তাই দেহ আজ গ্যাস্ট্রাইটিস থেকে মুক্তি লাভের ১০টি ঘরোয়া উপায় আপনাদের সামনে তুলে ধরবে। যেগুলো প্রয়োগ করে আপনি এই সমস্যা খুব সহজেই নির্মূল করতে পারবেন।

১. গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা ও ডাবের পানি

আপনারা হয়তো জানেন ডাবের পানি খেলে হজম ক্ষমতা বেড়ে যায়। ডাবের পানিতে রয়েছে বিভিন্ন পুষ্টিকর উপাদান। গ্যাস্ট্রাইটিস দেখা দিলে ডাবের পানি তা কমিয়ে দেয়। এছাড়া ডিসেন্ট্রি, আলসার, গ্যাস্ট্রাইটিস এবং বদহজমের মতো সমস্যাও দূর করে এই পানীয়। প্রতিদিন ডাবের পানি পান করবেন তাহলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা চিরতরে দূর হয়ে যাবে।

২. লেবুর রস

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা-২

লেবু কেটে নিয়ে রস বের করে তার সাথে আধা টেবিল চামচ বেকিং সোডা দিয়ে ভালো করে নাড়ুন। তারপর তার মধ্য এক কাপ পানি দিয়ে সবগুলো উপাদান একসাথে মিশিয়ে খেয়ে নিন। এছাড়াও গরম পানির সাথে লেবুর রস মিশিয়ে খেলেও এই সমস্যা দূর হয়ে যায়।

৩. আদা

বদহজমে আদা অনেক বেশি কার্যকর। কয়েক টুকরো আদা কেটে নিয়ে সেটি চিবিয়ে খেতে পারেন। আপনি চাইলে প্রতিদিন আদা দিয়ে চা করেও খেতে পারেন।

৪. গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা ও বেকিং সোডা

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা-৪ বেকিং সোডা

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় বেকিং সোডা জাদুর মত কাজ করে। বেকিং সোডা হলো অম্লনাশক। এটি অ্যাসিডের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে। খাবারের পর ১ গ্লাস পানির মধ্য ১/২ চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে এটি ৩—৪ বার খেলে এই সমস্যা থেকে রক্ষা পেতে পারেন।

৫. গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা ও আমলকী

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা-৫ আমলকি

আমলকী খাবার হজমে সহায়তা করে। আমলকী রাতে পানিতে ভিজিয়ে রেখে সেই পানি সকালে ১ গ্লাস খেয়ে নিলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমে যাবে। প্রতিদিন এই কাজটি করতে হবে। এছাড়াও আমলকীর গুঁড়ো পানির মধ্য গুলিয়ে দিনে কয়েকবার খেলেই এই সমস্যা থেকে চিরতরে রেহাই পেতে পারেন।

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা-৬ মৌরি

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় গরম পানির মধ্য কিছু পরিমাণ মৌরি মিশিয়ে পাঁচ মিনিট রেখে দিতে হবে। তারপর এটি ঠান্ডা হলে খেয়ে ফেলুন। আপনি চাইলে মৌরি চিবিয়েও খেতে পারেন

৭. গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা ও পুদিনা পাতা

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা-৭ পুদিনা পাতা

পুদিনা পাতা পেটের যে-কোনো সমস্যার সমাধান করতে পারে খুব সহজে। পুদিনা পাতা বা এর রস আপনি খেয়ে দেখতে পারেন, এটি সাথে সাথে কাজ করবে। আপনি চাইলে পুদিনা পাতার চা বানিয়েও খেতে পারেন।

৮. পানি

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা-৭ পানি

আমরা জানি পানির অপর নাম জীবন। প্রতিদিন ৭—৮ গ্লাস পানি পান করলে যে-কোনো সমস্যা দূর হয়ে যাবে। পানি খাবার হজম করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। তাই গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দূর করতে বেশি করে পানি পান করুন।

৯. গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা ও দারুচিনি

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা-৭ দারুচিনি

এক গ্লাস গরম দুধের মধ্যে ১ চামচ দারুচিনির গুঁড়ো মিশিয়ে ভালো করে নাড়িয়ে নিন। তারপর এটি পান করুন। আপনি চাইলে এর সঙ্গে মধু মিশিয়েও খেতে পারেন।

১০. জিরা পানি

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা-৮ জিরাপানি
©timesofindia

১ চা চামচ জিরা প্রথমে ভেজে নিন। তারপর জিরা সম্পূর্ণ গুঁড়ো না করে ভাঙা ভাঙা রেখে দিন। এটি পানিতে মিশিয়ে যখন আপনি খাবার খাবেন ঠিক সেইসময় পান করতে পারেন। ভারী খাবার খাওয়ার পর পর আপনি জিরা পানি খেতে পারেন এটি আপনার হজমে জাদুর মত কাজ করবে।

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হলে এটা থেকে মুক্তিও আপনি পেতে পারেন সহজে। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে দেহ আপনাদের যে ঘরোয়া উপায়গুলো বলে দিলো সেগুলো প্রয়োগ করলে আর আপনাকে এই সমস্যায় ভুগতে হবে না। আর খুব বেশি সমস্যা হলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। আপনার সুস্বাস্থ্যের জন্য আমরা সবসময় আপনার পাশে আছি।

প্রবাচ

Leave your vote

Comments

0 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *