in

প্রেমিকের মন খারাপ হলে কী করবেন?

আহসান মাহমুদ

আশপাশে কত কিছুই না ঘটছে। এসবের প্রভাব পড়ে ব্যক্তিগত জীবনেও। নিত্যজীবনের নানা ঘটনা আমাদের মন খারাপ করে দিতেই পারে। আবার কখনো কখনো বিনা কারণেই মন খারাপ হয়। বিষণ্ন লাগে, উদাস লাগে। কিছুতেই যেন মন বসতে চায় না।

আপনার প্রেমিকেরও হঠাৎ করেই কোনো একটি কারণে মন খারাপ হয়ে যেতে পারে। কিন্তু সঙ্গী হিসেবে আপনার উচিত প্রিয় মানুষটি মন যাতে ভালো করা যায় তার জন্য চেষ্টা করা। কিন্তু কীভাবে? এই পথ জানাচ্ছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোরোগবিদ্যা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সুলতানা আলগিন।

তাকে নিয়ে সিনেমা দেখতে যান

প্রেমিক সিনেমা পছন্দ করলে সিনেমা দেখতে যেতে পারেন। সিনেমা হলে যাওয়া সম্ভব না হলে দুজন মিলে ল্যাপটপেই তাঁর সবচেয়ে প্রিয় কোনো সিনেমা দেখতে পারেন।

খাবার খেতে যান প্রিয় কোনো রেস্তোরাঁয়

প্রেমিকের মন খারাপ থাকলে সবচেয়ে ভালো বুদ্ধি হচ্ছে তাঁকে নিয়ে তাঁর প্রিয় কোনো খাবার খেতে যাওয়া। প্রিয় রেস্তোরাঁয় প্রিয় খাবার খেলে কার না মন ভালো হয়ে যায়? খাওয়ার সময় আড্ডা দিন, গল্প করুন, মজা করুন; দেখবেন মন খারাপ হাওয়ায় উড়ে গেছে। তাঁর প্রিয় বন্ধুদের দাওয়াত দিয়েও নিতে পারেন। বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটালেও মন ভালো হয়ে যেতে পারে।

রান্না করুন

নিজের প্রেমিকার হাতের রান্না যেকোনো প্রেমিকের জন্য খুবই পছন্দের। তাই আপনার প্রেমিক যখন বিষণ্ন, তাঁকে খুশি করার জন্য তাঁর পছন্দের কোনো খাবার রান্না করে ফেলুন। রান্না খুব একটা ভালো না পারলেও তাঁর জন্য চেষ্টা করুন, দেখবেন আপনার এই ভালোবাসাটুকুই তাঁর মনের কালো মেঘ সরিয়ে দিচ্ছে।

হঠাৎ একটি ছোট্ট উপহার

উপহার পেলে কার না মন ভালো হয়? কোনো উপলক্ষ থাকলে তো একে অন্যকে উপহার দেওয়াই হয়। কিন্তু যখন আপনার প্রেমিকের মন খারাপ, তাঁকে সারপ্রাইজ হিসেবে দারুণ কোনো উপহার দিন। এর জন্য যে আপনাকে অনেক খরচ করতে হবে তা কিন্তু নয়। একটি ফুল বা ছোট্ট একটি কার্ডই তাঁর মন খারাপ অবস্থা দূর করে দিতে পারে।

পুরোনো স্মৃতি মনে করিয়ে দিন

ছোটবেলায় ডায়েরি লিখতেন নিশ্চয়ই! এই অভ্যাসটি প্রেমিককে খুশি করার জন্যও কাজে লাগাতে পারেন। সম্পর্কের শুরু থেকে কোথায় কোথায় বেড়াতে গিয়েছেন, মজার কোনো স্মৃতি আরও একবার মনে করিয়ে দিন লেখার মাধ্যমে। একসঙ্গে কাটানো কিছু মুহূর্তের ছবিও ব্যবহার করতে পারেন। কয়েক পাতার একটি চিঠি লিখে পুরোনো যেকোনো ভালো স্মৃতি মনে করিয়ে দিন।

সামাজিক মাধ্যমে তাঁর সম্পর্কে ভালো কিছু লিখুন

এখন আমাদের জীবনযাপন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বাইরে আমরা ভাবতেই পারি না। প্রেমিকের মন ভালো করতে এটিকে ব্যবহার করা যায়। নিজেদের মজার কোনো ঘটনা, রোমান্টিক কোনো ঘটনা বা মধুর কোনো স্মৃতি লিখে সবাইকে তাঁর প্রতি আপনার ভালোবাসা জানিয়ে দিন। মুখে যতই প্রাইভেসির কথা বলুন না কেন, মনে মনে খুশি হবেন তিনি।

প্রশংসা!

প্রশংসা ও ভালোবাসা হচ্ছে এমন দুটি জিনিস, যা যেকোনো মানুষের মন নরম করে দেয়। প্রেমিকের মন খারাপ হলে আপনি বাড়তি ভালোবাসা দিয়ে অভাবটা পূরণ করে দিন। মন খারাপ থাকলে তাঁর প্রশংসা করুন, দেখবেন একসময় ঠিকই মন খারাপ দূর হয়ে গেছে।

সমস্যা নিয়ে আলোচনা করুন

যেকোনো সমস্যার কারণে হঠাৎ করে মন খারাপ হতে পারে প্রেমিকের। তাঁর সমস্যার কথা তাঁর কাছ থেকেই শুনুন এবং আপনার পক্ষে সমাধানযোগ্য হলে তা সমাধানের চেষ্টা করুন। দুজনে মিলে আলোচনা করুন সমস্যা কীভাবে সমাধান করা সম্ভব। দেখবেন এই আলোচনাই প্রেমিকের মন অনেকটা ভালো করে দেবে।

What do you think?

DEHO

Written by DEHO

রোগ প্রতিরোধ এবং প্রতিকারের জন্য ওষুধের উপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে প্রাকৃতিক প্রতিষেধকগুলো সম্পর্কে ধারণা এবং এদের ব্যবহার জানা জরুরী। সঠিক খাদ্য নির্বাচন এবং ব্যায়াম অসুখ বিসুখ থেকে দূরে থাকার মূলমন্ত্র। রোগের প্রতিকার নয়, প্রতিরোধ করা শিখতে হবে। এই সাইটটির উদ্দেশ্য বাংলাভাষায় স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি করা। তবে তা কোন অবস্থাতেই চিকিৎসকের বিকল্প হিসাবে নয়। রোগ নির্ণয় এবং তার চিকিৎসার জন্য সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Loading…

0

মাঝবয়সের যত যন্ত্রণা

সমস্যার নাম ফ্রোজেন শোল্ডার